ঢাকা আহছানিয়া মিশনের স্বাস্থ্য সেক্টরের উদ্যোগে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এ বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উদযাপিত

ঢাকা আহছানিয়া মিশনের স্বাস্থ্য সেক্টরের উদ্যোগে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এ বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উদযাপিত

১০ই অক্টোবর বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস, এই দিবস উপলক্ষে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এ অদ্য ১৩.১০.২০১৯ ইং তারিখে একটি আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় “মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়ন ও আত্মহত্যা প্রতিরোধ। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে ঢাকা আহছানিয়া মিশনের স্বাস্থ্য সেক্টর কর্তৃক বাস্তবায়িত জিআইজেড বাংলাদেশ এর কারিগরি সহযোগিতায় কারাঅভ্যন্তরে কারাবন্দীদের মাদকাসক্তি বিষয়ক চিকিৎসা, প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসনকার্যক্রম “ইমপ্রুভমেন্ট অব দ্যা রিয়েল সিচুয়েশন অফ ওভার ক্রাউডিং ইন প্রিজন ইন বাংলাদেশ (আইআরএসওপি)”প্রকল্পের উদ্যোগে দিবসের প্রতিপাদ্যের উপর কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এ সচেতনতা মূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় দিবসের তাৎপর্য ও মানসিক স্বাস্থ্যের গুরত্ব তুলে ধরে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন প্রকল্পের রিহ্যাবিলিটেশন সুপারভাইজর কাম কাউন্সেলর। সভায় মূল প্রবন্ধে আত্রাত্যার বিভিন্ন পরিসংখ্যান উপস্থাপন করতে গিয়েব লা হয় বিশ্বে আত্মহত্যার কারণে প্রতি ৪০ সেকেন্ডে ১ জন ব্যক্তির মৃত্যু ঘটে। আত্রাহত্যা করছেন এমন মানুষগুলোর বেশীর ভাগই মানসিক সমস্যায় ভুগে থাকে।
আত্যহত্যার প্রধান কারণ হিসেবে মানসিক সমস্যাকেই ধরা হয়। এছাড়াও বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার মতে ২০১২ সালে বিশ্বব্যাপী ৮ লক্ষ আত্মহত্যার মধ্যে ১,৭৫,০০০ হাজার এর আত্মহত্যার কারণ ছিল মাদক ব্যবহার। সভায় উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট কারাগারের সিনিয়র জেলসুপার, জেলার, ডেপুটি জেলার ।
আলোচনায় বক্তারা বলেন , বন্দীদের মানসিক যত্নের বিষয়ে গুরত্বারোপ করেন। কারাগারে অলস সময় না কাটিয়ে নিজেকে ব্যস্ত সময় কাটানোর জন্য বিভিন্ন কাজে যুক্ত থাকা ধর্মীয় কাজে মনোনিবেশ এবং আইআরএসওপি প্রকল্পের যে দলীয় কাউন্সেলিং সেশন হয় সে শিক্ষা অনুসরণ করে এগিয়ে যাবার আহবান জানান। পরিশেষে বন্দীদের মানসিক যত্ন ও অপরাধী জীবনে থেকে দূরে থাকা ও আত্মহত্যা প্রতিরোধে মানসিক যত্ন ও পারিবারিক সম্পর্কের উপর গুরত্বারোপ করেন।

Please like and share us: